৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছিলঃ ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান

জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি – জাগপা সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান বলেছেন, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নামে প্রহসন করা হয়েছিল। সারা দেশের কোথাও দিনের বেলা কোন নির্বাচন হয় নাই, নির্বাচন হয়েছে রাতের আঁধারে। দেশের মানুষের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছিল। তাই বাংলাদেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে ২৯ ডিসেম্বরের রাত, ভোট ডাকাতির কালো রাত আর ৩০ ডিসেম্বর দিন, গণতন্ত্রকে হত্যা করার দিন।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জাগপা সভাপতি আরও বলেন, গণমাধ্যমের মাধ্যমে জেনেছি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আয়োজনে ইসি খরচ করেছে ৭০০ কোটি টাকা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য ৪০০ কোটি টাকা এবং বাকি ৩০০ কোটি টাকা নির্বাচন পরিচালনার জন্য। রাতের আঁধারে ভোট ডাকাতি করে, ভোটের আগেই যে নির্বাচনে ভোটের ফলাফল তৈরি করে রাখা হয় সেই ভোটে ৭০০ কোটি টাকা খরচ করা হয়। এই টাকা কোথাও থেকে উড়ে এসে জুড়ে বসে নাই। আমার দেশের সাধারণ মানুষের কষ্টে অর্জিত ভ্যাট-ট্যাক্সের টাকা প্রহসনের নির্বাচনে উড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা আপনাদের কে দিয়েছে?

ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান আরও বলেন, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে আমাদের অন্যতম প্রধান দাবী ছিল ভোট ও ভাতের অধিকার, গণতন্ত্রের অধিকার, ন্যায় বিচারের অধিকার। স্বাধীন দেশের ৫০ বছর পূর্তির দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আজও আমাদের ভোট, ভাত, গণতন্ত্র ও ন্যায় বিচারের অধিকারের জন্য কথা বলতে হয়। এর দায় এর লজ্জা আপনাদের এই বাংলার মাটিতেই একদিন পেতে হবে।