মজলুম জননেতা শফিউল আলম প্রধানের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল

বিএনপি নেতৃত্বাধীন বিশ দলীয় জোটের অন্যতম রুপকার ও আধিপত্যবাদ বিরোধী আন্দোলনের আপোষহীন রাজনীতিবিদ, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি জাগপা’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের আগামীকাল (২১মে ২০২২) ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১৭ সালের এই দিনে তিনি হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে আসাদগেট নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেন।

শফিউল আলম প্রধানের জন্ম ১৯৪৯ সালের ১ জানুয়ারি পঞ্চগড় জেলায়। তিনি তৎকালীন প্রাদেশিক পাকিস্তানের আইন পরিষদের স্পীকার এ্যাড. মৌলভী গমির উদ্দিন প্রধানের ৩য় ছেলে। শফিউল আলম প্রধান ১৯৬৮ সালে শেখ বোরহানউদ্দিন কলেজের নির্বাচিত জিএস এবং ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ হলের ভিপি নির্বাচিত হন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে পড়া অবস্থায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক ছিলেন। ১৯৭২-৭৩ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং ১৯৭৪ সালে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৭৪ সালের ৩০ মার্চ ছাত্রলীগের পক্ষে ক্ষমতাসীনদের দুর্নীতির তালিকা প্রকাশ করে তিনি গ্রেফতার হন।

শফিউল আলম প্রধান ১৯৭৮ সালে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৮০ সালের ৬ এপ্রিল জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি- জাগপা গঠন করেন। জাগপার ব্যানারে তিনি দেশ মাটি ও মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। আগ্রাসনবিরোধী এবং দেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তিনি রাজপথে ছিলেন। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, তিস্তার পানি, দহগ্রাম আংগুরপোতা, ফারাক্কা লংমার্চ, টিপাইমুখ বাঁধ, বেরুবাড়ী লংমার্চ, দিনাজপুরে ইয়াসমিন হত্যার আন্দোলন, সীমান্ত হত্যাসহ নানাবিধ ইস্যু নিয়ে বছরের পর বছর আন্দোলন করেছেন। এ জন্য প্রতিটি সরকারের শাসনামলেই তাকে কারাগারে যেতে হয়েছে।

শফিউল আলম প্রধানের স্মৃতিচারণ করে (কন্যা) জাগপা’র বর্তমান সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান বলেন, শফিউল আলম প্রধান ছিলেন এদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের একজন সিংহ পুরুষ। প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে জনগণের পাশে থাকা এই বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদকে জাতি চিরদিন স্মরণ করবে। ইসলামী মূল্যবোধ ও জাতীয়তাবাদী ধারার রাজনীতি বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেছেন শফিউল আলম প্রধান। শুধু তাই নয়, গণতন্ত্র ও জনগণের ভোটাধিকার পুনরুদ্ধারের জন্য শফিউল আলম প্রধান বিএনপি নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোটকে ২০দলীয় জোটে রুপান্তর করে বিশাল প্লাটফর্ম তৈরী করে গেছেন। মাতৃভূমি ও স্বজাতি মানুষের জন্য তার দৃষ্টিভঙ্গি ছিল মমতার বাধঁন জড়িয়ে। তার আকস্মিক মৃত্যু ও দেশের শূণ্যতা আজ জনগণ মর্মে মর্মে অনূভব করছে।

শফিউল আলম প্রধানের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আগামীকাল (শনিবার) সকাল ১০ ঘটিকায় ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে এবং দুপুরে বনানী কবরস্থানে মরহুমের জন্য দোয়া এবং পুস্পস্তবক অর্পণ করবে জাগপা ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।